কাতার বিশ্বকাপে নিষিদ্ধ রঙের নাম 'রামধনু'! - nagariknewz.com

কাতার বিশ্বকাপে নিষিদ্ধ রঙের নাম ‘রামধনু’!


কাতার ফুটবল বিশ্বকাপ যেন নিষেধাজ্ঞার বিশ্বকাপ! সমকামিতা তো নিষিদ্ধ‌ই। এলজিবিটি গোষ্ঠীর পতাকার রঙ যেহেতু রেনবো, তাই রেনবো কালারেও নিষেধাজ্ঞা কর্তৃপক্ষের।

বিশেষ প্রতিবেদন: কাতার, ফিফা বিশ্বকাপ-২০২২-কে  বলা চলে নিষেধাজ্ঞার বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপ ফুটবলের ইতিহাসে এমন ঘটনা আগে কখনও ঘটেছে, এমন নজির পাওয়া যাচ্ছে না। মাঠের ভেতরে খেলার চাইতে তাই মাঠের‌ বাইরে কী কী ঘটে চলেছে- কাতার বিশ্বকাপে এটা নিয়েই বেশি আগ্রহ দুনিয়ার সংবাদ মাধ্যমের। গোড়া থেকেই ‌বিশ্বকাপকে হালাল করতে উঠেপড়ে লেগেছে কাতার সরকার। এবং তার ঠ্যালায় নাভিশ্বাস উঠেছে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের ফুটবলার ‌থেকে ফুটবলপ্রেমী, সকলের। এমনকি রেহাই মিলছে না বিশ্বকাপ কভার করতে আসা বিদেশি সাংবাদিকদের‌ও।

কাতারে সমকামিতা নিষিদ্ধ। বিশ্বকাপ চলাকালে কাতারে সমকামী ‌জুটির প্রকাশ্য এমনকি গোপন বিচরণ‌ও নিষিদ্ধ। সমকামিতাকে উদ্বুদ্ধ করে এমন কোনও রঙ বা রঙের সমাহার ও প্রতীককেও বরদাস্ত করতে রাজি নয় কাতার কর্তৃপক্ষ। রামধনু রঙ বা রেনবো কালারের পতাকা বহন করেন এলজিবিটি সম্প্রদায়ের মানুষ। কাতার বিশ্বকাপে এই রামধনু রঙের উপরেও কোপ পড়েছে প্রশাসনের। স্টেডিয়ামে রামধনু রঙের পতাকা নিয়ে এলে তাঁর স্থান হবে গারদে। এমনকি রামধনু রঙের টুপি, হেয়ারব্যান্ড, রিস্টব্যান্ড কিম্বা আর্মব্যান্ড পরলেও আপত্তি জানাচ্ছে পুলিশ।

বিশ্বকাপ ফুটবলের মতো ইন্টারন্যাশনাল মেগা ইভেন্ট যেখানে বসে, সেখানে সারা পৃথিবীর লোক ভেঙে পড়ে। অতীতে এমন নিষেধাজ্ঞার কোপে পড়তে হয় নি ‌বিশ্বকাপকে। প্রকাশ্যে বিয়ার পান থেকে সমকামিতা- কাতার বিশ্বকাপে নিষেধাজ্ঞার তালিকা বিরাট। প্রথমে কিঞ্চিত গাঁইগুঁই করলেও পরে কাতারের সব দাবিই মেনে নিয়েছে ফিফা। ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে প্রতিবাদ আসলেও তা বিশেষ পাত্তা দিচ্ছেন না ফিফার প্রেসিডেন্ট  জিয়ান্নি ইনফান্তিনো। বিশ্বকাপে অংশ নেওয়া ইউরোপের সাতটি দেশের অধিনায়করা রামধনু রঙের আর্মব্যান্ড পরে মাঠে নামার সিদ্ধান্ত নিয়েও ফিফার হুমকিতে পিছিয়ে এসেছেন। বিশ্বকাপে এলজিবিটি-দের প্রতি কাতার প্রশাসনের বৈষম্যের প্রতিবাদে তাঁরা রামধনু রঙের আর্মব্যান্ড পরে মাঠে নামতে চেয়েছিলেন। কিন্তু বিষয়টিতে কাতার সরকারের গাত্রদাহ আছে, জানতে পেরেই ওয়ান লাভ রেনবো বাহুবন্ধনীতে নিষেধাজ্ঞা চাপায় ফিফা।

গ্র্যান্ট ওয়াহল, মার্কিন ক্রীড়াসাংবাদিক। রেনবো কালারের টি-শার্ট পরায় স্টেডিয়ামে ঢুকতে বাধা পেয়েছেন। ছবি-ট্যুইটার।

বেলজিয়ামের জার্সিতে রামধনু রঙ আছে। কাতার সরকারের মন রাখতে সেই জার্সিতেও বদল আনতে বাধ্য করেছে বিশ্ব ফুটবলের নিয়ামক সংস্থা। রামধনু রঙের পোশাক পরে স্টেডিয়ামে ঢুকতে গেলেও দর্শকদের আটকে দিচ্ছে পুলিশ। গ্র্যান্ট ওয়াহল, মার্কিন ক্রীড়াসাংবাদিক। সোমবার রামধনু রঙের টি-শার্ট পরে কাতারের একটি স্টেডিয়ামে ঢুকতে গিয়ে বাধা পান গ্র্যান্ট। নিরাপত্তাকর্মীরা তাঁকে রেনবো রঙের টি-শার্ট খুলে অন্য রঙের পোশাক পরতে বলে। গ্র্যান্ট  বিষয়টি ট্যুইট করে দুনিয়াকে জানাতে গেলে তাঁর মোবাইল কেড়ে নেওয়া হয়। এমনকি কিছুক্ষণের জন্য তাঁকে আটকে রাখে নিরাপত্তাকর্মীরা। পরে গ্র্যান্ট ওয়াহলকে স্টেডিয়ামে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হলেও তাতে একজন সাংবাদিককে হেনস্থার ঘটনাটা লঘু করে দেখার সুযোগ নেই।

Feature Image is Representational and collected.


Leave a Reply

Your email address will not be published.