প্রবল শৈত্যপ্রবাহে কাঁপছে দেশের রাজধানী, সাথে দোসর দূষণ‌ও - nagariknewz.com

প্রবল শৈত্যপ্রবাহে কাঁপছে দেশের রাজধানী, সাথে দোসর দূষণ‌ও


ঋতুপর্ণা কোলে: হাড় কাঁপানো ঠান্ডায় জুবুথুবু উত্তর ভারত। দেশের রাজধানীতে প্রবল শীতে জেরবার মানুষ। রবিবার সকাল থেকেই দিল্লি ভয়াবহ শৈত্যপ্রবাহের কবলে। ভোরের আলো ফোটার আগে থেকেই রাজধানী ছিল ঘন কুয়াশার চাদরে ঢাকা। ইতিমধ্যেই ভারতীয় আবহাওয়া দপ্তর (IMD) কমলা অ্যালার্ট জারি করেছেন দিল্লি জুড়ে।

দিল্লির সফদরজং এলাকায় রবিবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা নেমে আসে ১.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। পাঞ্জাব, হরিয়ানা, পশ্চিম ইউপির অবস্থাও একই। শৈত্যপ্রবাহ ও ঘন কুয়াশার কারণে বেশকিছু জায়গায় বাইরের ঘোরাফেরার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সকালের দিকে বেশকিছু ট্রেন ও বিমানকে বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। দিল্লির ইন্দিরা গান্ধী এয়ারপোর্টে ২০টি বিমানকে দেরিতে দুপুর ১টার পর ওড়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। ANI এর রিপোর্ট অনুযায়ী সকাল ৬টা অবধি কোনো বিমানকেই দিল্লি এয়ারপোর্ট থেকে উড়তে এবং নামতে দেওয়া হয় নি। শনিবারের অবস্থাও একই রকম ছিল। ঘন কুয়াশার কারণে বিপর্যস্ত রেল পরিষেবা‌ও। রবিবার সকালে নতুন দিল্লি রেল স্টেশন থেকে ৪২টি ট্রেন বাতিল হয়েছে। বাকি ট্রেনগুলিও যথেষ্ট বিলম্বে চলছে।

কুয়াশার গ্রাসে রাজধানী দিল্লি। বাতিল বহু ট্রেন, উড়ান বাতিল অনেক প্লেনেরও। ছবি- ট্যুইটার

তীব্র শীতের কারণে দিল্লির স্কুলগুলিতে ১৫তারিখ অবধি ছুটি দেওয়া হয়েছে। পাঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তরপ্রদেশ-ও ছুটির পথে হাঁটছে। শৈত্যপ্রবাহের পাশাপাশি পাল্লা দিয়ে বাড়ছে দিল্লির দূষণ। IMD দিল্লির বায়ুকে “Toxic Air” বা বিষাক্ত বায়ু হিসাবে ঘোষণা করেছে। শনিবার Air Quality Index (AQI) ৩৫৯ অবধি পৌঁছে গেছিলো। পরিবেশের স্বাভাবিক নিয়ম অনুসারে ঠান্ডা যত বেশি হয়, বাতাস তত ভারি হয় এবং সূক্ষ্ম ধুলোকণাকে ততবেশি শোষণ করে। ঠান্ডা ও দূষণ দুটো থেকেই আপাতত মুক্তি নেই দিল্লিবাসীর আরও সপ্তাহ খানেক।

Feature Photo- Collected.


Leave a Reply

Your email address will not be published.