নির্বাচন কমিশনের নতুন নিয়ম: বয়স ১৭ হলেই করা যাবে ভোটার তালিকায় নাম তোলার আবেদন - nagariknewz.com

নির্বাচন কমিশনের নতুন নিয়ম: বয়স ১৭ হলেই করা যাবে ভোটার তালিকায় নাম তোলার আবেদন


নির্বাচন কমিশনের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, এই মুহূর্তে দেশে মোট ভোটারের সংখ্যা ৯৪ কোটি ৫০ লক্ষ। ১৮-১৯ বছর বয়সি নতুন ভোটারের সংখ্যা ১ কোটি ৪৩ লক্ষ।

ডেস্ক রিপোর্ট: ভারতীয় সাধারণতন্ত্রের বয়স ৭৩-এ পা রাখার আগেই একটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিল জাতীয় নির্বাচন কমিশন। ১৩তম জাতীয় ভোটার দিবসে নির্বাচন কমিশনের ঘোষণা- এবার থেকে বয়স ১৭ হলেই ভোটার তালিকায় নাম তোলার জন্য আবেদন করা যাবে। এতদিন পর্যন্ত ১ জানুয়ারির মধ্যে ১৮ বছর বয়স হলেই কেবল ভোটার তালিকায় নাম অন্তর্ভুক্ত করার আবেদন জানানো যেতো।

১৮তে পা দেওয়া মাত্রই ভোটার!

২০১১ সাল থেকে প্রত্যেক বছর সাধারণতন্ত্র দিবসের আগের দিন ২৫ জানুয়ারি ‘জাতীয় ভোটার দিবস’ পালন করে আসছে নির্বাচন কমিশন। জাতীয় ভোটার দিবসের মূল লক্ষ্য দেশের নাগরিকদের আরও বেশি করে ভোটদানে উৎসাহিত করা। দেশের নতুন প্রজন্মকে ভোটকেন্দ্রমুখী করতেই ১৭-তেই নতুন ভোটারদের জন্য প্রি-রেজিস্ট্রেশন চালু করল নির্বাচন কমিশন। এতদিন পর্যন্ত যাদের জন্মতারিখ ১ জানুয়ারির পরে, ভোটার তালিকায় নাম নথিভুক্ত করার জন্য তাদের বছরভর অপেক্ষায় থাকতে হত। নতুন নিয়মে বয়স সতেরো হলেই ছেলেমেয়েরা ভোটার তালিকায় নাম নথিভুক্ত করতে চেয়ে আবেদন করতে পারবে। এটাকেই বলা হচ্ছে আগাম আবেদন বা প্রি-রেজিস্ট্রেশন। বয়স ১৮ বছর হ‌ওয়ার সাথে সাথেই আগাম আবেদনকারীরা ভোটার হয়ে যাবেন। নতুন ভোটারদের বাড়িতে ডাকযোগে ভোটার কার্ড পৌঁছে যাবে।

বছরে চারবার নাম তোলার সুযোগ

নতুন নিয়ম কার্যকর করতে বছরে একবারের পরিবর্তে চারবার ভোটার তালিকায় নাম সংযোজন-সংশোধনের প্রক্রিয়া চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন। চলতি বছর থেকেই এই প্রক্রিয়া চালু করা হচ্ছে। পয়লা জানুয়ারির পাশাপাশি ১ এপ্রিল, ১ জুলাই ও ১ অক্টোবর‌ও খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে এবং তাতে নাম সংযোজন, সংশোধন ও বিয়োজনের জন্য আবেদন জানানো যাবে। অর্থাৎ এখন থেকে প্রতি তিনমাস অন্তর ভোটার তালিকা হালনাগাদের কাজ চলবে। এর ফলে ভোটার তালিকায় নাম তোলার জন্য নতুন ভোটারদের এক বছর অপেক্ষা করার পালা ফুরোলো। ২০২২-এর ২৮ জুলাই নতুন ভোটারদের প্রি-রেজিস্ট্রেশনের কথা প্রথম ঘোষণা করেন দেশের মুখ্য নির্বাচন কমিশনার রাজীব কুমার। তবে পশ্চিমবঙ্গ সহ অধিকাংশ রাজ্যেই নতুন নিয়ম লাগু হচ্ছে ২০২৩-এর জানুয়ারি থেকে। এখনও পর্যন্ত নতুন নিয়মে ১৭ লক্ষ ৩৬ হাজার ১৮১ জন নতুন ভোটারের নাম ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে বলে নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে।

এই মুহূর্তে দেশে নতুন ভোটারের সংখ্যা ১ কোটি ৪৩ লক্ষ।

নির্বাচন কমিশনের পরামর্শ মেনে কেন্দ্রীয় সরকার জনপ্রতিনিধিত্ব আইনে সংস্কার করাতেই ত্রৈমাসিক ভোটার তালিকা হালনাগাদ প্রক্রিয়া চালু এবং নতুন ভোটারদের আগাম আবেদনের সুযোগ দেওয়া সম্ভব হয়েছে।

দেশে তিন লক্ষ শতবর্ষী ভোটার!

বিশ্বের বৃহত্তম গণতন্ত্রের নাম ভারত। ভারতীয় গণতন্ত্রের যাত্রা শুরু ১৯৫০-এর ২৬ জানুয়ারি। তার ঠিক দু’বছর বাদে ১৯৫২ সালে দেশে প্রথম বহুদলীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচন কমিশনের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, এই মুহূর্তে দেশে মোট ভোটারের সংখ্যা ৯৪ কোটি ৫০ লক্ষ। ১৮-১৯ বছর বয়সি নতুন ভোটারের সংখ্যা ১ কোটি ৪৩ লক্ষ। বয়স ৮০ বছরেরও বেশি, এমন ভোটারের সংখ্যা ২ কোটির ওপরে। দেশে প্রায় তিন লক্ষ ভোটার রয়েছেন, যাঁদের বয়স একশো পেরিয়ে গেছে। অর্থাৎ ভারতে যত অশীতিপর ভোটার আছেন, তা পৃথিবীর বহু দেশের মোট জনসংখ্যার থেকে বেশি!

Feature Image (collected) is representational.


Leave a Reply

Your email address will not be published.