প্রার্থীর নাম ঘোষণার আগেই জলপাইগুড়িতে প্রচারে কংগ্রেস , ভোটের লড়াইয়ে জোটের ভবিষ্যৎ দিন দিন উজ্জ্বল হবে , দাবি ডিপি রায়ের


নিজস্ব সংবাদদাতা,৮মার্চ,২০২ : আনুষ্ঠানিকভাবে প্রার্থীর নাম ঘোষণার আগেই জলপাইগুড়ি সদর বিধানসভা আসনে প্রচার শুরু করে দিল কংগ্রেস । সোমবার বিকেলে জ্বালানি তেল ও গ্যাসের দাম বৃদ্ধি , নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের ঊর্ধ্বগতি এবং পুর পরিষেবার অবনতির অভিযোগে‌ জলপাইগুড়ি জেলা কংগ্রেস মিছিল ডাকলেও মিছিলের আমেজে ছিল পুরোদস্তুর ভোটের হাওয়া । 

জলপাইগুড়ি শহরে কংগ্রেসের মিছিল ।

জলপাইগুড়ি জেলার বিধানসভা আসন গুলোতে ভোট গ্রহণ ‌হবে আগামী৭ এপ্রিল । কংগ্রেসের এই জেতা আসনে জোটের প্রার্থী কে হবেন এখনও তা ঘোষণার বাকি । তবে বর্তমান বিধায়ক ডঃ সুখবিলাস বর্মা‌র‌ই ফের মনোনয়ন পাবার সম্ভাবনা প্রবল বলে রাজনৈতিক মহলের ধারণা । এদিনের মিছিলে সুখবিলাসবাবু ছাড়াও সামিল হয়েছিলেন জেলা কংগ্রেসে সভাপতি পিনাকী সেনগুপ্ত , প্রাক্তন জেলা কংগ্রেস সভাপতি নির্মল ঘোষ দস্তিদার , বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা দেবপ্রসাদ রায় , টাউন ব্লক কংগ্রেস সভাপতি অম্লান মুন্সী সহ অন্যান্যরা । শহরের মিলন সংঘ ময়দান থেকে মিছিলের সূত্রপাত । প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে মিছিল শেষ হয় আইএম‌এ ময়দানে। মিছিল ‌শেষে সভা থেকে কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে আওয়াজ তোলার পাশাপাশি জোট প্রার্থীকে ভোট দিয়ে পুনর্নির্বাচিত করার আবেদন জানান কংগ্রেস নেতারা । 

মিছিলে জেলা কংগ্রেস সভাপতি পিনাকী সেনগুপ্ত।

বহুদিন পর শহরে কংগ্রেসের কোন‌ও কর্মসূচিতে সামিল হলেন বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা , প্রাক্তন রাজ্যসভা সদস্য ও প্রাক্তন বিধায়ক দেবপ্রসাদ রায় । ভোট প্রচার যে শুরু হয়ে গেল তা মেনে নেন দেবপ্রসাদবাবু । বরাবরই কংগ্রেসের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত জলপাইগুড়ি সদর বিধানসভা আসন । জেতা আসন ধরে রাখার ব্যাপারে মনে কোন‌ও সংশয় নেই দেবপ্রসাদবাবুর । স্বচ্ছ প্রশাসন ও সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে এবং গণতন্ত্র ও সংবিধানের মর্যাদা রক্ষা করতে জোট প্রার্থীদের ভোট দিয়ে বিজয়ী করতে মানুষের কাছে আবেদন জানান তিনি। ২৮ ফেব্রুয়ারি ব্রিগেডে জোটের সভার পর থেকেই রাজ্যের মানুষের কাছে জোটের গ্রহণযোগ্যতা বেড়ে গেছে বলে দাবি করেন দেবপ্রসাদ রায়। সা‌ত‌ই মার্চের বিজেপির ব্রিগেড সমাবেশের সঙ্গে জোটের ব্রিগেড সমাবেশের তুলনা টানতেও ভুলেন নি এই কংগ্রেস নেতা । মিঠুন চক্রবর্তীকে হাজির করে বিজেপি ব্রিগেডে লোক টানতে পারে নি বলে কটাক্ষ করেন তিনি । তুলনায় জোটের ব্রিগেডে মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে যোগ দিয়েছেন বলে মনে করেন তিনি । সাম্প্রতিক জনমত জরিপ গুলোতে তৃণমূল ও বিজেপির ভোট হ্রাসের বিপরীতে জোটের ভোট বৃদ্ধি উঠে এসেছে বলেও দাবি করেন দেবপ্রসাদবাবু । যতদিন যাবে দুই শক্তিকে সরিয়ে জোট‌ই প্রথমে উঠে আসবে বলে মনে করেন তিনি।

ভিডিও-



Leave a Reply

Your email address will not be published.