তৃণমূলের বিজয়া সম্মেলনীতে গরহাজির দলের ছয় বিধায়কের পাঁচজনই । মঞ্চে ক্ষোভ চেপে রাখতে পারলেন না খগেশ্বর রায়


প্রদ্যুৎ দাস, জলপাইগুড়ি,১২ নভেন্বর : দলের বিজয়া সম্মেলনীতে দলের বিধায়কদের দেখতে না পেয়ে অনুষ্ঠান মঞ্চে ক্ষোভ প্রকাশ করলেন জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূলের চেয়ারম্যান খগেশ্বর রায় বৃহস্পতিবার বিকেলে শহরের সরোজেন্দ্র দেব রায়কত কলা কেন্দ্রে বিজয়া সম্মেলনীর আয়োজন করে জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূল কংগ্রেস কমিটি অনুষ্ঠানে দলের সমস্ত বিধায়ক , পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি , গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান এবং ব্লক সভাপতিদের উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও অধিকাংশ গরহাজির ছিলেন জেলার সাতটি বিধানসভার মধ্যে ছয়টিই তৃণমূলের দখলে অথচ দলের বিজয়া সম্মেলনীতে একজন ছাড়া আর কেউ উপস্থিত ছিলেন না অনুষ্ঠানে বিধায়ক হিসেবে একমাত্র উপস্থিত ছিলেন খগেশ্বরবাবুই যিনি জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূলের চেয়ারম্যান বটে  

 

জেলা তৃণমূল কংগ্রেস কমিটির ব্যানারে বিজয়া সম্মেলনী আয়োজিত হলেও এদিনের অনুষ্ঠানের মূল আয়োজক এসজেডিএ চেয়ারম্যান বিজয়চন্দ্র বর্মণ ছিলেন বলে তৃণমূল সূত্রে জানা গেছে অনুষ্ঠান পত্রে আহ্বায়ক হিসেবে জেলা তৃণমূল সভাপতি কৃষ্ণকুমার কল্যাণীর নাম ছিলজেলা সভাপতি অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকলেও দলের পাঁচ বিধায়ক সহ অধিকাংশ নেতানেত্রী কেন গরহাজির থাকলেন , নিয়ে গুঞ্জন শুরু হয়েছে জেলার রাজনৈতিক মহলে বিষয়টিকে মোটেই  হাল্কা ভাবে নেন নি খগেশ্বর রায় দলের জেলা কমিটিতে দুজন আহ্বায়ক থাকার পরেও কীভাবে অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণ সবার কাছে পৌঁছয় না  ইঙ্গিতে এই প্রশ্ন তোলেন খগেশ্বরবাবু আয়োজকদের ত্রুটির কারণেই অনুষ্ঠানে ব্যাপকহারে নেতাকর্মীদের অনুপস্থিতি বলে মঞ্চে সাফ জানিয়ে দেন জেলা তৃণমূলের চেয়ারম্যান যে অনুষ্ঠানে দলের চেয়ারম্যান এবং সভাপতি দুজনেই হাজির সেই অনুষ্ঠানেই দলের বিধায়ক এবং ব্লক পঞ্চায়েত স্তরের নেতাকর্মীদের ব্যাপক অনুপস্থিতি নিয়ে তৃণমূলের অন্দরে নানা হিসেবনিকেশ শুরু হয়েছে বলে খবর


Leave a Reply

Your email address will not be published.