সফর বাতিল কর্মসূচি নয়, আমেদাবাদ থেকেই বন্দে ভারত সহ যাবতীয় প্রকল্পের সূচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী - nagariknewz.com

সফর বাতিল কর্মসূচি নয়, আমেদাবাদ থেকেই বন্দে ভারত সহ যাবতীয় প্রকল্পের সূচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী


হাওড়া: মাতৃবিয়োগের কারণে বাংলায় আসতে পারলেন না প্রধানমন্ত্রী। তবে মায়ের শেষকৃত্য সেরে আমেদাবাদ থেকেই ভার্চুয়াল মাধ্যমে হাওড়া-এনজেপি বন্দে ভারত এক্সপ্রেস সহ বাংলার জন্য একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন নরেন্দ্র মোদী। শুক্রবার বেলা ১১টা বেজে ১১ মিনিট নাগাদ সবুজ পতাকা নাড়িয়ে বন্দে ভারতের যাত্রা শুরু করিয়ে দিয়েই কলকাতা মেট্রোর জোকা-তারাতলা শাখার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। এ’দিন নিউ‌ জলপাইগুড়ি স্টেশনের আধুনিকীকরণ প্রকল্পের‌ও শিলান্যাস করেন তিনি।

বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের উদ্বোধন উপলক্ষে দিন কয়েক ধরেই সাজছিল হাওড়া স্টেশন চত্বর। প্রধানমন্ত্রী আসবেন। তাই নিরাপত্তার ঘেরাটোপে মুড়ে দেওয়া হয়েছিল হাওড়া স্টেশনকে। সকালে প্রধানমন্ত্রীর মাতৃ বিয়োগের সংবাদ আসা মাত্রই বন্দে ভারত সহ বাকি প্রকল্পের উদ্বোধন নিয়ে সংশয় তৈরি হয়। কলকাতা সফর বাতিল করে মায়ের শেষ কৃত্যে যোগ দিতে আমেদাবাদে র‌ওনা দেন নরেন্দ্র মোদী। যদিও কিছুক্ষণের মধ্যেই প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে জানানো হয়, আমেদাবাদ থেকেই ভার্চুয়াল মাধ্যমে বন্দে ভারত এক্সপ্রেস ও জোকা-তারাতলা মেট্রোর উদ্বোধন করবেন মোদী।

বন্দে ভারত এক্সপ্রেস নিউজ জলপাইগুড়ির উদ্দেশ্যে র‌ওনা দেওয়ার আগে হাওয়া স্টেশনের ২২ নম্বর প্ল্যাটফর্মে।

বন্দে ভারতের উদ্বোধন উপলক্ষে হাওড়া স্টেশনে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব, কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী সুভাষ সরকার, রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী এবং রাজ্য বিজেপির সভাপতি তথা সাংসদ সুকান্ত মজুমদার সহ অন্যান্যরা। বন্দে ভারতের যাত্রা ঘিরে বাংলার বিজেপি শিবির পুরো জোশে আছে। গেরুয়া ব্রিগেডের লোকেরা দলে দলে ভিড় জমিয়েছিলেন অনুষ্ঠানস্থলে। মোদীর জয়ধ্বনির পাশাপাশি অনুষ্ঠানস্থল মুখরিত ছিল ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনিতেও। মুখ্যমন্ত্রী মঞ্চে ওঠার আগেও ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি ওঠে। রাম নাম কানে যেতেই আর মঞ্চে ওঠেন নি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রেলমন্ত্রী ও রাজ্যপাল মঞ্চে উঠতে অনুরোধ করলেও রাজি হন নি মমতা। পরে নিচে দাঁড়িয়েই বক্তৃতা দেন তিনি।

বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের সামনে রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব, সাংসদ সুকান্ত মজূমদার ও সুরিন্দর সিং আলুয়ালিয়া।

বন্দে ভারত এক্সপ্রেস ও জোকা-তারাতলা মেট্রোর উদ্বোধনের পর নিজের ভাষণে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “ভারতীয় রেলের পরিকাঠামোকে আধুনিক করে গড়ে তুলতে রেকর্ড পরিমাণ বিনিয়োগ হচ্ছে। ভারতীয় রেলের পরিষেবাকে বিমান পরিষেবার সমান পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। দেশের অগ্রগতির জন্য রেলের উন্নয়ন আবশ্যক।” মোদী আরও বলেন, “নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশনকেও নতুন করে গড়ে তোলা হচ্ছে। হাওড়া-নিউ জলপাইগুড়ি বন্দে ভারত এক্সপ্রেস রেল যোগাযোগের উন্নতিতে বড় ভূমিকা রাখবে।”

মোদী বলেন, “জোকা-তারাতলা মেট্রো নির্মাণে ৫ হাজার কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে। নমামি গঙ্গা প্রকল্পে আদিগঙ্গা সংস্কার করার কাজ চলছে।” “ও আমার দেশের মাটি, তোমার পরে ঠেকাই মাথা”- রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কবিতার পংক্তি আওরান মোদী। প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমাদের রাষ্ট্র ভাবনা একটাই- দেশের হিতের জন্য কাজ করা। দেশকে গড়ে তোলা।” হাওড়া থেকে র‌ওনা দেওয়ার পর বন্দে ভারত এক্সপ্রেসকে একটু চাক্ষুষ করতে ট্রেনটির যাত্রাপথের প্রতিটি স্টেশনেই ঢল নামে মানুষের।

ভিডিওতে দেখুন: বর্ধমান স্টেশন অতিক্রম করে যাচ্ছে বন্দে ভারত এক্সপ্রেস-

Photo and Video- Collected.


Leave a Reply

Your email address will not be published.