ফৌজি হিসেবেই চিরবিদায় নিলেন জেনারেল রাওয়াত


জেনারেল বিপিন লক্ষ্মণ সিংহ রাওয়াত। স্বাধীন ভারতের ইতিহাসে প্রথম চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ- অর্থাৎ দেশের তিন বাহিনীর সর্বাধিনায়ক । ১৯৫৮ সালের ১৬ মার্চ উত্তরাখণ্ডের পৌড়ী এলাকার এক গাঢ়‌ওয়ালি রাজপুত পরিবারে বিপিন রাওয়াতের জন্ম। বাবা লক্ষ্মণ সিংহ রাওয়াত‌ও ছিলেন সেনাবাহিনীর লেফটেন্যান্ট জেনারেল। বাবার পদাঙ্ক অনুসরণ করে ফৌজিতে যোগ দেন বিপিন‌ও। স্কুল জীবন শেষ করতেই সুযোগ মিলে যায় ন্যাশনাল ডিফেন্স অ্যাকাডেমিতে । ১৯৭৮ এর ডিসেম্বরে দেরাদুনের ইন্ডিয়ান মিলিটারি অ্যাকাডেমিতে প্রশিক্ষণ শেষে নিয়োগ পান ইলেভেন গোর্খা রাইফেলসের পঞ্চম ব্যাটেলিয়ানে।

দীর্ঘ ফৌজি জীবনে কর্তব্য পালনে কখনো গাফিলতি করেন নি জেনারেল রাওয়াত । কাশ্মীরে পোস্টিং ছিল বহুদিন। নিয়ন্ত্রণরেখায় দাঁড়িয়ে পাক হামলার মোকাবিলায় জ‌ওয়ানদের নেতৃত্ব দিয়েছেন সাফল্যের সঙ্গে । সন্ত্রাসবাদ বিরোধী অভিযানে নেতৃত্ব দিয়েছেন একাধিকবার। ব্রিগেডিয়ার হিসেবে রাষ্ট্রসংঘের শান্তিবাহিনীর দায়িত্ব নিয়ে গিয়েছিলেন আফ্রিকার কঙ্গোতে। ফিরে এসে মেজর জেনারেল পদে উন্নীত হয়ে ১৮ নম্বর পদাতিক ডিভিশনের কমান্ডিং অফিসারের দায়িত্ব নিয়েছেন বিপিন লক্ষ্মণ সিংহ রাওয়াত।

লেফটেন্যান্ট জেনারেল হিসেবে নিযুক্ত হ‌ওয়ার পর নাগাল্যান্ডের ডিমাপুরে সেনাবাহিনীর তিন নম্বর কোরের কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করেন বিপিন রাওয়াত । উত্তর-পূর্বাঞ্চলের জঙ্গি দমনে বিশেষ দক্ষতার পরিচয় দেন তিনি। পুণেতে সেনার সাউদার্ন কমান্ডের প্রধান ছিলেন। কিছু সময়ের জন্য পূর্বাঞ্চলীয় কমান্ডের প্রধানের দায়িত্ব‌ও পালন করেন জেনারেল রাওয়াত। ২০১৬-র সেপ্টেম্বরে ভারতীয় সেনাবাহিনীর সহকারী সেনাপ্রধানের ( Vice Chief of the Army Staff ) দায়িত্ব পান বিপিন রাওয়াত। দু’মাস পরেই তাঁকে‌ দেশের সেনাপ্রধান হিসেবে নিয়োগ করেন রাষ্ট্রপতি। সৈনিক জীবনে কৃতিত্বের ‌জন্য উত্তম যুদ্ধ সেবা মেডেল, পরম বিশিষ্ট সেবা মেডেল সহ একাধিক সম্মাননা লাভ করেছেন বিপিন রাওয়াত।

চিফ অব আর্মি স্টাফ হিসেবে জেনারেল বিপিন রাওয়াতের অবসরে যাওয়ার কথা ছিল ২০১৯-এর ৩১ ডিসেম্বর। একদিন আগে তাঁকে চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ বা তিন বাহিনীর প্রধান হিসেবে নিয়োগ করে সরকার। দেশের প্রথম সেনা সর্বাধিনায়কের তাজ ওঠে জেনারেল বিপিন লক্ষ্মণ সিংহের শিরে । ২০১৫-য় মায়াম্মারে জঙ্গি বিরোধী সেনা অভিযান থেকে ২০১৯-এ পাক অধিকৃত কাশ্মীরের বালাকোটে এয়ার স্ট্রাইক – দেশের নিরাপত্তা ও সেনাবাহিনীর সম্মান রক্ষায় যে কোনও ধরণের ঝুঁকিপূর্ণ অভিযান ঠান্ডা মাথায় পরিচালনা করার সহজাত দক্ষতা ছিল জেনারেল বিপিন লক্ষ্মণ সিংহ রাওয়াতের । জীবনের অন্তিম মুহুর্ত পর্যন্ত সেনাবাহিনীর সেবায় নিয়োজিত থাকলেন জেনারেল রাওয়াত। বুধবার দুপুর ১২ টা ৪০ মিনিটে হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় সস্ত্রীক জেনারেল রাওয়াত সহ ১৩ জন ম্যান ইন ইউনিফর্মের মর্মান্তিক মৃত্যুতে সারা দেশ শোকস্তব্ধ।

Photo Credit- Facebook pages.


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *