জলপাইগুড়ি জেলার ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত এলাকা থেকে এক মহিলা সহ পাঁচ অনুপ্রবেশকারী গ্রেফতার


জলপাইগুড়ি : অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশ করে গ্রেফতার পাঁচ বাংলাদেশী নাগরিক। ধৃতদের একজন মহিলা। শুক্রবার সকালে সীমান্ত সংলগ্ন খারিজা বেরুবাড়ির দাসপাড়া এলাকা থেকে এদের গ্রেফতার করে জলপাইগুড়ি জেলার সদর ব্লকের মানিকগঞ্জ ফাঁড়ির পুলিশ। ধৃতরা হল লিটন শেখ ( ২৬ ), হৃদয় শেখ( ২৫ ),জুবাইদল শিকদার ( ৩২ ), আনারুল মিঞা ( ৪০ ) এবং পারভিন বেগম ( ৩৪ ) দালালের মাধ্যমে কাজের সন্ধানে তারা ভারতে অনুপ্রবেশ করেছিল বলে প্রাথমিক জেরায় পুলিশকে জানিয়েছে ধৃতেরা। ধৃতদের কাছ থেকে বাংলাদেশী কারেন্সি ও সিম উদ্ধার হয়েছে।

আদালতের পথে ধৃত বাংলাদেশী অনুপ্রবেশকারীরা।

ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের বুড়িরজোত এলাকা দিয়ে ঢোকার পর হলদিবাড়ি থেকে এনবিএসটিসি’র বাস ধরে শিলিগুড়ির দিকে যাচ্ছিল পাঁচ অনুপ্রবেশকারী । দাসপাড়া মোড়ে পুলিশের নাকা চেকিংয়ের সময় ধারা পড়ে যায় তারা। বাংলাদেশের নড়াইল জেলায় ধৃতদের বাড়ি বলে জানা গেছে। সীমান্ত পার করিয়ে দিতে দালাল এক-একজনের কাছ থেকে ১৫ হাজার টাকা করে নিয়েছে বলে ধৃতরা জানিয়েছে। ধৃত পারভিন বেগম বলে, ” সংসারে খুব অভাব । চারটা বাচ্চা ‌। স্বামীর কাজ নাই। কষ্ট দেখে গ্রামের মানুষ বলল, ভারত চলে যাও। ভারতে গিয়ে কাজ করে সংসার চালাও। ” ধৃত এক যুবকের আবার কাজের সন্ধানে মুম্বাইয়ে পাড়ি দেওয়ার পরিকল্পনা ছিল।

ভিডিও- জলপাইগুড়ি জেলার সীমন্ত এলাকা থেকে ধৃত পাঁচ বাংলাদেশী অনুপ্রবেশকারী।

বাংলাদেশের নড়াইল থেকে জলপাইগুড়ির ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের দূরত্ব অনেক। সীমান্তের অনেক জায়গাই এখনও কাঁটাতার বিহীন। বুড়িরজোত সীমান্তেও ফেন্সিং নেই । তাই এই এলাকাকেই অনুপ্রবেশের জন্য বেছে নিয়েছে দালালেরা । দিন কয়েক আগে খোদ কলকাতা থেকে ৩৮জন বাংলাদেশী অবৈধ অনুপ্রবেশকারীকে আটক করা হয়েছে। অনুপ্রবেশকারীদের অনেকে আধার ও ভোটার কার্ড পর্যন্ত জোগাড় করে ফেলে । বিএসএফের কড়াকড়ির পরেও সীমান্তে অনুপ্রবেশ আটকানো যাচ্ছে না কেন সব থেকে বড় প্রশ্ন এখন এটাই।

Photo and Video – Reporter. Feature Image is symbolic.


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *