ত্রিপুরার পুরভোটে গেরুয়া সুনামি, উনিশে উনিশ বিজেপি খাতা খুলেই তুষ্ট তৃণমূল


আগরতলা : ত্রিপুরার পুরভোটে দাগ‌ই কাটতে পারল না তৃণমূল কংগ্রেস।‌ আমবাসায় একটি মাত্র আসনে জোড়াফুল ফুটেছে । আগরতলার ৫১ আসনে খাতাই খুলতে পারে নি তৃণমূল। তবে সেখানে ১৬ টি ওয়ার্ডে সিপিএমকে সরিয়ে তৃণমূলের দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসার খবর পাওয়া যাচ্ছে। আগরতলা পুরসভার সবকটি ওয়ার্ডই জিতে নিয়েছে বিজেপি। এর ফলে বামেদের হাতে থাকা আগরতলা পুরসভার দখল নিল পদ্ম শিবির । ত্রিপুরার পুরভোটে‌ একটি আসন লাভ ও কিছু ওয়ার্ডে দ্বিতীয় স্থান পাওয়াটাকেই বড় করে দেখাচ্ছেন তৃণমূল নেতৃত্ব। পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষ ট্যুইট বার্তায় জানিয়েছেন, এত হামলা , মামলার পরেও আমবাসায় একটি ওয়ার্ডে জয় ও বহু ওয়ার্ডে দ্বিতীয় হ‌ওয়াটাই বড় কথা। ত্রিপু্রার নির্বাচন কমিশন ও পুলিশ দলদাস বলে অভিযোগ‌ করেছেন কুণাল । ‌

আগরতলায় বিজেপির নারী কর্মী-সমর্থকদের বিজয়োল্লাস।

গত বৃহস্পতিবার রাজধানী আগরতলা সহ ত্রিপুরার ১৩টি পুরসভা ও ৬টি নগর পঞ্চায়েতের নির্বাচন হয়েছে। ভোটের আগে থেকেই রাজনৈতিক অশান্তির অভিযোগ করছে বিরোধীরা । ত্রিপুরায় পায়ের নিচে ‌জমি শক্ত করতে মরীয়া তৃণমূল। পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূলের নেতারা কলকাতা-আগরতলা এয়ার রুটে ডেলি প্যাসেঞ্জারি করছেন বলা চলে। যদিও সিপিএমের অভিযোগ , ভোট ভাগাভাগি করে বিজেপিকে সুবিধা পাইয়ে দিতেই ত্রিপুরায় তৎপর হয়ে উঠেছে তৃণমূল। পুরভোট স্থগিতের আর্জি নিয়ে তৃণমূল ‌নেত্রী সুস্মিতা দেব সুপ্রিম কোর্টে গেলেও কর্ণপাত করেন নি বিচারকেরা । ভোটের দিন প্রাণহানির ঘটনা না ঘটলেও সিপিএম ও তৃণমূলের অভিযোগ ছিল বিস্তর । বেশিরভাগ ওয়ার্ডেই তাদের পোলিং এজেন্টদের পর্যন্ত‌ বুথে বসতে দেওয়া হয় নি বলে বিরোধী প্রার্থীদের অভিযোগ। যদিও তৃণমূল ও সিপিএমের অভিযোগকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছেন ত্রিপুরা বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব।

ফল প্রকাশের পর মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের সাংবাদিক সম্মেলন।

রবিবার সকাল ন’টা থেকেই কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে আগরতলা সহ ১৯টি গণননাকেন্দ্রে ভোট গণনার কাজ শুরু হয়ে যায়। ৩৩৪টি ওয়ার্ডের মধ্যে ১১২টিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতাতেই জিতে যায় বিজেপি। বাকি ২২২টি ভোট নেওয়া হয়। আমবাসার ১৫টি ওয়ার্ডের মধ্যে সিপিএম, ত্রিপুরামোথা এবং তৃণমূল একটি করে আসন জিতেছে। পানিসাগরে একটি ওয়ার্ড পেয়েছে সিপিএম। ধর্মনগর ( ২৫ টি ওয়ার্ড) , খোয়াই ( ১৫টি ওয়ার্ড ) , তেলিয়ামুড়া (১৫ টি ওয়ার্ড), সোনামুড়া ( ১৩ টি ওয়ার্ড) , অমরপুর ( ১৩টি ওয়ার্ড ) , সাব্রুম (৯টি ওয়ার্ড ) এবং বিলোনিয়া ( ১৩ টি ওয়ার্ড ) পুরসভার সবকটি ওয়ার্ড দখল করেছে বিজেপি। গণনা প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পর দেখা গেল, ১৩টি পুরসভা ও ৬টি নগর পঞ্চায়েতের সবকটিই কব্জা করে নিয়েছে বিজেপি। ত্রিপুরার পুরভোটে গেরুয়া ঝড়ে খুশি পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য বিধানসভার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবকে ট্যুইট করে অভিনন্দন জানিয়েছেন শুভেন্দু।

Photo Credit- BJP Tripura FB page.

To read this content also in Hindi click on Select Language option.

যদি কনটেন্টটি পড়ে আপনার ভাল লাগে তবে কিছু অর্থ দিয়ে পোর্টালটির উন্নয়নে আপনি অবদান রাখতে পারেন donate now অপশনে ক্লিক করে-


Leave a Reply

Your email address will not be published.