কৃষক আন্দোলনের বর্ষপূর্তিতে ধর্মতলায় সভা: একনায়কতন্ত্রকে হার মানিয়েছেন দেশের কৃষকেরা,দাবি সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার


অরুণকুমার : তিন কৃষি আইনের প্রতিবাদে আন্দোলনের বর্ষপূর্তির আগেই হার মেনেছে সরকার। দিন কয়েক আগেই আইন তিনটি প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। বিজয়ের আনন্দের মধ্যেই শুক্রবার কৃষক আন্দোলনের বর্ষপূর্তি উদযাপিত হল দেশজুড়ে। এই উপলক্ষে কলকাতার ধর্মতলায় সমাবেশের আয়োজন করে সংযুক্ত কিষাণ মোর্চা। এতে আন্দোলনরত বিভিন্ন কৃষক সংগঠনের পাশাপাশি ছাত্র-যুব-শ্রমিক-কর্মচারী সহ অন্যান্য গণসংগঠনের সদস্যরা সামিল হয়েছিলেন। সভা শেষে ধর্মতলা থেকে শিয়ালদহ পর্যন্ত মিছিল করেন আন্দোলনকারীরা । সভায় অভীক সাহা, কার্তিক পাল , অমল হালদার , সুশান্ত ঝাঁ , সমীর পুততুন্ড , প্রদীপ সিং ঠাকুর এবং হরিপদ বিশ্বাস সহ অন্যান্যরা বক্তব্য রাখেন।

কলকাতায় সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার সমাবেশ।

ধর্মতলার সমাবেশে নেতারা বলেন, ” কৃষক আন্দোলনে জয় এসেছে। কৃষক স্বার্থবিরোধী আইন বাতিলের ঘোষণা হয়েছে। কিন্তু আমাদের সংগ্রাম এখনও শেষ হয় নাই। ফসলের ন্যায্য মূল্যের উপর উৎপাদকের অধিকার কায়েম না হ‌ওয়া আন্দোলন চলবে ।” কৃষক সংগঠনের নেতাদের অভিযোগ, ” এক বছর ধরে দেশের কৃষকদের সঙ্গে অমানবিক আচরণ করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। বহু আন্দোলনকারী ধর্নাস্থলে মারা গেছেন। এঁদের পরিবারকে উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। ” শান্তিপূর্ণ গণতান্ত্রিক আন্দোলনের মাধ্যমে কৃষকেরা একনায়কতান্ত্রিক সরকারকে বশ্যতা স্বীকার করিয়ে ছেড়েছে বলে সভায় দাবি করা হয় । শত প্ররোচনাতেও হিংসার ফাঁদে পা দেওয়ায় আন্দোলনকারীদের ধন্যবাদ জানান নেতারা ।

পাঞ্জাব জুড়ে কৃষকদের মিছিল ও সভা-সমাবেশ।

ফসলের নূন্যতম সহায়ক মূল্য নিশ্চিত করা , খেরিতে কৃষক হত্যার ঘটনায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অজয় মিশ্রকে বরখাস্ত ও গ্রেফতার, বিদ্যুৎ সংশোধনী বিল প্রত্যাহার এবং বায়ু দূষণ আইন সংশোধন না করা পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে বলে কৃষক নেতারা জানিয়েছেন। কলকাতার পাশাপাশি রাজ্যের বিভিন্ন জেলাতেও‌ এদিন কৃষক আন্দোলনের বর্ষপূর্তি পালন করা হয় । দিল্লি , পাঞ্জাব , হরিয়ানা ‌ এবং উত্তরপ্রদেশ সহ দেশের বিভিন্ন রাজ্যে সভা-সমাবেশ-মিছিলের মাধ্যমে আন্দোলনের বর্ষপূর্তি পালন করেন কৃষকেরা । সারা পৃথিবী জুড়েই কৃষিক্ষেত্রে একটা অস্থিরতা চলছে। কৃষকেরা উৎপাদিত ফসলের দাম পাচ্ছেন না । জমি , বীজ ও চাষের উপর নিজেদের নিয়ন্ত্রণ হারাচ্ছেন । বহুজাতিক কোম্পানি গুলি চাষীদের চুক্তিচাষে বাধ্য করছে বলে অভিযোগ। এই পরিস্থিতিতে ভারতের কৃষক আন্দোলনের দিকে নজর ছিল অন্যান্য দেশের কৃষক সংগঠনগুলির‌ও। এক বছর পরে ভারতের কৃষক আন্দোলন সফল হ‌ওয়ায় ব্রিটেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা , পেরু , আয়ারল্যান্ড, থাইল্যান্ড, ফিলিপিনস, মালয়েশিয়া এবং বাংলাদেশের কৃষক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ অভিনন্দনবার্তা পাঠিয়েছেন।

ফটো- অরুণকুমার।

To read this content in Hindi also click on Select Language.


Leave a Reply

Your email address will not be published.