মানবেতিহাসে প্রথমবার : ফ্যালকন নাইন রকেটে চেপে মহাকাশে চার সাধারণ নাগরিক


ইনস্পিরেশন ফোর মিশনের সফল উৎক্ষেপণ । মহাকাশ যাত্রার ইতিহাসে প্রথম বার। চার সাধারণ মানুষকে নিয়ে পৃথিবীর কক্ষপথে পাড়ি দিল রকেট

সায়েন্স ডেস্ক : এমন দিন হয়তো খুব বেশি দূরে নেই , যখন আপনি মরিশাস-মালদ্বীপে ছুটি কাটাতে না গিয়ে হয়তো দিন তিনেকের জন্য মহাকাশেই ঘুরে এলেন । মহাকাশ ভ্রমণের জন্য আর প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত মহাকাশচারী হ‌ওয়ার প্রয়োজন নেই । গ্যাঁটের কড়ি হাত খুলে খরচ করার সামর্থ্য থাকলে যে কার‌ও জন্য মহাশূন্য থেকে পৃথিবীকে চক্কর মারার সুযোগ যাচ্ছে খুলে । বৃহস্পতিবার ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে চার সাধারণ মানুষকে নিয়ে মহাকাশে পাড়ি দিল স্পেস এক্সের ইনস্পিরেশন ফোর মিশন । ড্রাগন ক্যাপসুলে স‌ওয়ারি হয়ে মহাকাশে পাড়ি দেন ওই চার মার্কিন নাগরিক । ক্যাপসুলটিকে মহাকাশে নিয়ে যায় ফ্যালকন নাইন রকেট । মহাকাশ যাত্রা শুরু হ‌ওয়ার পর এই প্রথম সাধারণ নাগরিকদের নিয়ে পৃথিবীর কক্ষপথে পৌঁছালো কোন‌ও রকেট ।

ইনস্পিরেশন ফোর মিশন : ড্রাগন ক্যাপসুলে চার সিভিলিয়ান।

বৃহস্পতিবার শেষ রাতে কেনেডি স্পেস সেন্টারের লঞ্চিং প্যাড থেকে চার মহাকাশ ভ্রমণার্থীকে নিয়ে রকেট উৎক্ষেপণ সফল হতেই ইতিহাস রচিত হয় । সাথে সাথেই ট্যুইট করে ঘটনাটি জানায় স্পেস এক্স কর্তৃপক্ষ। ঐতিহাসিক মুহুর্তটি লাইভ সম্প্রচার‌ও করে তারা ‌। ভূপৃষ্ঠ থেকে ৫৮৫ কিলোমিটার ( ৩৬৪ মাইল ) উপরে ক্রুজিং কক্ষপথে তিনদিন পৃথিবী প্রদক্ষিণ শেষে চারজনকে নিয়ে আগামী ১৮ সেপ্টেম্বর আটলান্টিক মহাসাগরে অবতরণ করবে ড্রাগন ক্যাপসুলটি । তিন দিনে প্রতি নব্বুই মিনিটে একবার করে পৃথিবীকে পাক খাবেন তাঁরা । প্রতি দিন পনেরো বার করে সূর্যোদয় সূর্যাস্তের সাক্ষী থাকবেন চার সাধারণ নাগরিক মহাকাশ ভ্রমণার্থী । পরিকল্পিত উচ্চতার থেকেও ১০ কিলোমিটার ( ৬ মাইল ) বেশি উচ্চতায় মহাকাশ যানটিকে পাঠানো সম্ভব হয়েছে বলে স্পেস এক্সের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে ।

ইনস্পিরেশন ফোর মিশনের সফল উৎক্ষেপণ ।

যে চারজন সিভিলিয়ান এদিন মহাকাশ ভ্রমণে গেলেন তাঁদের একজন ৩৮ বছরের আমেরিকান ধনকুবের জ্যারেড আইজ্যাকম্যান । মহাকাশ যাত্রার বিপুল জ্বালানি খরচের অনেকটাই যাচ্ছে এই ধনীর পকেট থেকে । এছাড়াও আছেন ২৯ বছরের যুবক হ্যালে আরসেনক্স , যিনি সদ্য ক্যানসার জয় করেছেন । ভূবিজ্ঞানী সিয়ন প্রোক্টর এবং মার্কিন বিমান বাহিনীর প্রাক্তন বৈমানিক ক্রিস সেমব্রোস্কি । পুরো অভিযানের লাইভ আউটপুট দেওয়া হচ্ছে স্পেসএক্সের সাইট থেকে।

Photo Credit – SpaceX , Video Credit – SpaceX Youtube .


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *