শুভেন্দু অনুগামী রাখাল বেরাকে গ্রেফতার করে ডিভিশন বেঞ্চে চাপে সরকার , বুধবার‌ই জবাব দেওয়ার নির্দেশ


হাইলাইটস –
  • শুভেন্দু অনুগামী রাখাল বেরাকে গ্রেফতার করে হাইকোর্টে মুখ পোড়ার অবস্থা সরকারের ।
  • সোমবার হাইকোর্টের সিঙ্গেল বেঞ্চে জামিন পান রাখাল । সিঙ্গেল বেঞ্চের নির্দেশের বিরুদ্ধে ডিভিশন বেঞ্চে যায় রাজ্য
  • মঙ্গলবার সকালে জেল থেকে বেরোনো মাত্র‌ই রাখাল বেরাকে ফের গ্রেফতার করে পুলিশ ।
  • ডিভিশন বেঞ্চে শুনানি চলাকালীন রাখালের গ্রেফতারের কথা বিচারপতিদের কানে তোলেন ধৃতের আইনজীবী ।
  • হাইকোর্টকে না জানিয়ে আবার কেন গ্রেফতার ? জানতে চান বিচারপতিরা । বুধবার সরকারকে জবাব দিতে নির্দেশ।

কলকাতা : হাইকোর্টে জামিন হয়ে যাওয়ার পরেও শুভেন্দু অনুগামী রাখাল বেরাকে জেল গেটে ফের গ্রেফতার করে বিপাকে রাজ্য প্রশাসন । সোমবার হাইকোর্টে রাখালের জামিন মঞ্জুর করে রাজশেখর মান্থার সিঙ্গেল বেঞ্চ । সিঙ্গেল বেঞ্চের রায়ের বিরুদ্ধে তড়িঘড়ি ডিভিশন বেঞ্চের দ্বারস্থ হয় রাজ্য সরকার । মঙ্গলবার সকালে বিচারপতি তপব্রত চক্রবর্তী ও বিচারপতি শুভাশিস দাশগুপ্তের ডিভিশন বেঞ্চে মামলাটির শুনানির সময় রাখাল বেরার আইনজীবী লোকনাথ চট্টোপাধ্যায় গ্রেফতারের খবরটি বিচারপতিদের কানে তোলেন । শোনা মাত্রই সরকার পক্ষের আইনজীবীদের চেপে ধরেন বিচারপতিরা । সিঙ্গেল বেঞ্চের নির্দেশ ছিল , রাখাল বেরাকে অন্য কোনও মামলায় আবার গ্রেফতার করার আগে আদালতের কাছে থেকে অনুমতি নিতে হবে ।

কেন হাইকোর্টের নির্দেশ লঙ্ঘন করে রাখাল বেরাকে গ্রেফতার করল পুলিশ ? ডিভিশন বেঞ্চে শুনানি চলা কালেই কেন গ্রেফতার করতে হল ? রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্তকে প্রশ্ন করেন দুই বিচারপতি । যে পুলিশ অফিসার রাখালকে গ্রেফতার করেছেন অ্যাডভোকেট জেনারেলের কাছে তাঁর নাম‌ও জানতে চান বিচারপতিদ্বয় । জবাবে অ্যাডভোকেট জেনারেল যা জানেন তাতে রুষ্ট হন বিচারপতিরা । সোমবার হাইকোর্টে জামিনের মামলাওঠার আগেই গত ১৫ জুনের একটি মামলায় নিম্ন আদালত থেকে রাখালকে গ্রেফতারের পরোয়ানা বের করে রাখে পুলিশ । পরে হাইকোর্টের সিঙ্গেল বেঞ্চ রাখাল বেরাকে জামিনের নির্দেশ ‌দেয় । মঙ্গলবার জেল গেট থেকে বেরোনো মাত্র‌ই তাকে ফের গ্রেফতার করে পুলিশ । পুরো বৃত্তান্ত শোনার পর ডিভিশন বেঞ্চের বিচারপতিরা অ্যাডভোকেট জেনারেলকে প্রশ্ন করেন , নিম্ন আদালত থেকে গ্রেফতারের নির্দেশের কথা সরকার সিঙ্গেল বেঞ্চের সামনে গোপন করল কেন ? বিচারপতিদের সদুত্তর দিতে ব্যর্থ হন অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত । শুভেন্দু অধিকারীর অনুগামী রাখাল বেরার গ্রেফতার সংক্রান্ত যাবতীয় নথি জমা দিতে সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে ডিভিশন বেঞ্চ । বুধবার‌ই ডিভিশন বেঞ্চের সামনে জবাব দিতে হবে রাজ্য সরকারকে ।

রাখাল বেরা ।

এদিন রাজ্যের তরফে মামলার শুনানিতে হাজির ছিলেন দেশের বিখ্যাত আইনজীবী , প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী ও কংগ্রেস নেতা পি চিদম্বরম‌ও । ভরা এজলাসে রাজ্য প্রশাসনের কান্ডকারখানা শুনে হতভম্ব হয়ে পড়েন চিদম্বরম । রীতিমতো অস্বস্তিতে পড়ে যান তিনি । বুধবার মামলার শুনানিতে তিনিও অংশ নিচ্ছেন কিনা বিচারপতিরা তা জানতে চাইলে চিদম্বরম বলেন, ‘ আমি এই সবের কিছুই জানি না । আমার আর কিছু বলার নেই । ‘

সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে একের পর এক মামলায় ফাঁসিয়ে তাঁর মক্কেলকে জেলে আটকে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন রাখাল বেরার আইনজীবী লোকনাথ চট্টোপাধ্যায় । সোমবার এই রকম‌ই একটি সাজানো মামলায় রাখালকে পুলিশ ফাঁসাতে গিয়েছিল বলে অভিযোগ করেন তিনি । বিষয়টি ডিভিশন বেঞ্চের নজরে আসায় রাজ্য সরকারকে অস্বস্তিতে পড়তে হল বলে রাজনৈতিক মহলের ধারণা।

File Pictures.


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *