মৈত্রী সেতুর উদ্বোধন , সেতু দ্বারা যুক্ত হল ভারত ও বাংলাদেশ


এনএনডিসি,৯ মার্চ,২০২১ :তিহাসে প্রথমবারের মতো সেতু দ্বারা যুক্ত হল ভারত ও বাংলাদেশ ।‌ মঙ্গলবার দুপুরে ভার্চুয়াল কনফারেন্সের মাধ্যমে ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী সেতুর উদ্বোধন করলেন দু’দেশের প্রধানমন্ত্রী । ফেনী নদীর ওপর নির্মিত এই সেতু ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের দক্ষিণ ত্রিপুরা জেলার সাব্রুম মহকুমার ডৌলবাড়ির সঙ্গে বাংলাদেশের খাগড়াছড়ি জেলার রামগড়কে যুক্ত করল । ২০৫ সালের জুন দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী সেতুটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন । ২০৭ সালে সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু করে ভারতের জাতীয় সড়ক ও পরিকাঠামো উন্নয়ন নিগম ( National Highways and Infrastructure Development Corporation Ltd. – NHIDCL ) কর্তৃপক্ষ । এক দশমিক নয় কিলোমিটার দীর্ঘ মৈত্রী সেতু নির্মাণে খরচ পড়েছে ৩৩ কোটি টাকা । সেতুটি থেকে বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বন্দরের দূরত্ব মাত্র ৮০ কিলোমিটার । মৈত্রী সেতুর দৌলতে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে অতি দ্রুত ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্য গুলোতে পণ্য সরবরাহ করা যাবে বলে মনে করছেন দুই দেশের বাণিজ্যিক মহল । 

ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী সেতু ।

ভার্চুয়াল মোডে মৈত্রী সেতুর উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন,এই সেতু হল দুই বন্ধু দেশের মধ্যে নতুন একটি ‘বাণিজ্য করিডোর’ । মৈত্রী সেতুর মধ্য দিয়ে দুই দেশের বাণিজ্য এবং মানুষে মানুষে সংযোগের ক্ষেত্রে নতুন এক অধ্যায়ের সূচনা হল। এই সেতুর কারণে ত্রিপুরা চট্টগ্রাম বন্দর থেকে নর্থ-ইস্টে পৌঁছানোর গেটওয়ে হয়ে উঠল ।’ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, এই সেতু শুধু দুই দেশের মাঝে সেতুবন্ধই রচনা করবে না বরং ব্যবসা-বাণিজ্য এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নের ক্ষেত্রেও বিরাট অবদান রাখবে। শুধু চট্টগ্রাম পোর্ট নয়, চট্টগ্রাম আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরও ব্যবহার করতে পারবেন ত্রিপুরার মানুষ ।’  সাব্রুমের  অনুষ্ঠানস্থলে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব‌ও উপস্থিত ছিলেন ।

সাব্রুমে মৈত্রী সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব ।


Pictures Courtesy – official facebook page of Biplab Deb ,CM of Tripura. 


Leave a Reply

Your email address will not be published.