মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত দুই জঙ্গিকে আদালত থেকে ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় চাঞ্চল্য বাংলাদেশে - nagariknewz.com

মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত দুই জঙ্গিকে আদালত থেকে ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় চাঞ্চল্য বাংলাদেশে


সীমান্তে পেরিয়ে পশ্চিমবঙ্গে ঢুকতে পারে দুই জঙ্গি- আশঙ্কা বাংলাদেশের গোয়েন্দাদের

ঢাকা: মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত দুই জঙ্গিকে আদালত চত্বর থেকে ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় চাঞ্চল্য বাংলাদেশ জুড়ে।‌ ম‌ইনুল হাসান শামিম ওরফে সিফাত সামির (২৪) এবং মোহাম্মদ আবু সিদ্দিক সোহেল ওরফে সাকিব (৩৪) নামের ওই দুই জঙ্গিকে রবিবার দুপুরে  ঢাকার সিজিএম আদালতের ফটকের সামনে পুলিশের হাত থেকে ছিনিয়ে নেয় কয়েকজন। মৌলবাদ বিরোধী ব্লগার অভিজিৎ রায় ও জাগৃতি প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী মুক্তবুদ্ধি ফয়সল আরেফিন দীপককে হত্যার অভিযোগে দু’জনকে মৃত্যুদন্ডের সাজা দিয়েছিল আদালত। এদিন  দুপুরে মামলার শুনানি শেষে জঙ্গি দু’জনকে এজলাস থেকে গাজিপুর মহানগর পুলিশের হেফাজতে নিয়ে যাওয়ার পথে দুটি মোটরবাইকে করে এসে কয়েকজন অতর্কিতে পুলিশের উপর হামলা চালায়। চোখে পিপার স্প্রে ছিটিয়ে কর্তব্যরত পুলিশকর্মীদের ধরাশায়ী করে মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত আসামী ম‌ইনুল হাসান শামিম ও মোহাম্মদ আবু সিদ্দিক সোহেলকে ছিনিয়ে নিয়ে যায় তাদের সহযোগীরা।

মৌলবাদী জঙ্গিদের হাতে নিহত প্রকাশক ফয়সল আরেফিন দীপন ও ব্লগার অভিজিৎ রায়।

২০২১-এর ফেব্রুয়ারিতে ফয়সল আরেফিন দীপন হত্যা মামলায় যে আট জঙ্গিকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছিল ঢাকার সন্ত্রাস বিরোধী ট্রাইব্যুনাল, তাদের মধ্যে সিফাত শামিম ও সোহেল‌ও ছিল। এরা আনসারুল্লাহ বাংলা নামে একটি ইসলামিক মৌলবাদী জঙ্গিগোষ্ঠীর সদস্য। রবিবার অন্য একটি মামলার শুনানিতে এই দুই জঙ্গি সহ আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সাত সদস্যকে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে ঢাকার সিজে‌এম আদালতে আনা হয়েছিল। কোর্ট পুলিশের হাত থেকে কীভাবে জঙ্গিরা তাদের ধৃত দুই সঙ্গীকে ছিনিয়ে নিতে পারল- বাংলাদেশের রাজনৈতিক মহলে এই প্রশ্ন উঠেছে। মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত এই জঙ্গিদের জেলখানা থেকে আদালতে আনা-নেওয়া করার সময় কঠোর নিরাপত্তার বেষ্টনী থাকে। জঙ্গি হামলায় নিহত প্রকাশক  দীপনের বাবা অধ্যাপক আবুল কাসেম ফজলুল হক প্রশ্ন তুলেছেন,  চার-পাঁচজনের একটি টিম বাইকে করে এসে দশজনের একটি সশস্ত্র পুলিশ দলকে এত সহজে  কাবু করতে পারে কীভাবে? অধ্যাপক আবুল কাসেমের কাছে পুরো ঘটনাটা‌ই অস্বাভাবিক বলে মনে হচ্ছে।

পুলিশের কাছ থেকে ছিনিয়ে নেওয়া দুই জঙ্গিকে ধরতে সারা দেশে রেড অ্যালার্ট জারি করেছে সরকার। ঘটনায় জড়িতদের ধরতেও পুলিশ অভিযানে নেমেছে বলে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান জানিয়েছেন।‌ পলাতক দুই জঙ্গিকে ‌ধরিয়ে দিতে পারলে ১০ লক্ষ টাকা করে মোট ২০ লক্ষ টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেছে সরকার। কুখ্যাত দুই জঙ্গি ম‌ইনুল হাসান শামিম  ও মোহাম্মদ আবু সিদ্দিক পালিয়ে পশ্চিমবঙ্গে আশ্রয় নিতে পারে বলে‌ও বাংলাদেশের গোয়েন্দাদের আশঙ্কা। এই কারণে সীমান্তে বিশেষ নজরদারি চালাচ্ছে বাংলাদেশের নিরাপত্তা বাহিনী।

আগামী বছরের শেষে বাংলাদেশে সংসদ নির্বাচন।‌ নির্বাচনকে ঘিরে এখন থেকেই দেশটির রাজনৈতিক পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে ভোট করার দাবিতে আন্দোলনে নেমেছে বিরোধী বিএনপি জোট। তাদের আন্দোলনকে দমন করতেই আওয়ামি লিগ সরকার ‌জঙ্গি নাশকতার গল্প ছড়াচ্ছে বলে‌ বিরোধীদের অভিযোগ। দিনে দুপুরে আদালত রাজধানী ঢাকার আদালত চত্বর থেকে দুই জঙ্গিকে ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনাও সরকারের সাজানো বলে অভিযোগ তুলে দিয়েছে বিএনপি।

Feature Image Credit- Prothom Alo.


Leave a Reply

Your email address will not be published.