ইতিহাসের প্রত্যাবর্তন ! ৫৫ বছর পর ফের সচল হল হলদিবাড়ি-চিলাহাটি রেলপথ || দু'দেশের প্রধানমন্ত্রীর ভার্চুয়াল কনফারেন্সের মাধ্যমে রেল যোগাযোগের উদ্বোধন - nagariknewz.com

ইতিহাসের প্রত্যাবর্তন ! ৫৫ বছর পর ফের সচল হল হলদিবাড়ি-চিলাহাটি রেলপথ || দু’দেশের প্রধানমন্ত্রীর ভার্চুয়াল কনফারেন্সের মাধ্যমে রেল যোগাযোগের উদ্বোধন


প্রদ্যুৎ দাস , জলপাইগুড়ি , ১৭ জানুয়ারি :  দীর্ঘ ৫৫ বছর পরিত্যক্ত থাকার পর ২০২০’র ১৭ ই ডিসেম্বর দুপুর থেকে ফের সচল হল ইতিহাসের রেলপথ। বৃহস্পতিবার সকাল এগারোটায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মধ্যে ভার্চুয়াল কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন পর্ব শেষ হতেই চিলাহাটি ও হলদিবাড়ি রেলপথে আনুষ্ঠানিক ভাবে রেল যোগাযোগ পুনরায় শুরু হয়ে গেল । যেন ইতিহাসের হাত ধরেই প্রাণ  ফিরল মৃত রেলপথে ।

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে  রেল যোগাযোগের উদ্বোধন করেন দু’দেশের প্রধানমন্ত্রী

দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর ভার্চুয়াল কনফারেন্সের ঘন্টা খানেক পরেই বাংলাদেশের চিলাহাটি স্টেশন থেকে পণ্যবাহী ট্রেন জিরো লাইন অতিক্রম করে ভারতীয় ভূখন্ডের রেল লাইনে প্রবেশ করতেই রচিত হল নতুন ইতিহাস । ১৯৬৫’র ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধের ঠিক আগেই এই রেলপথে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এরপর পদ্মা-গঙ্গা-যমুনা-তিস্তা দিয়ে অনেক জল গড়িয়ে গেছে । কিন্তু চিলাহাটি-হলদিবাড়ি রেলপথ চালু হয় নি । অবশেষে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী বর্ষ শুরু হ‌ওয়ার ঠিক আগেই ৫৫ বছরের পরিত্যক্ত রেলপথ পুনরায় চালু করা গেল । দেশভাগের আগে দীর্ঘসময় ধরে তো বটেই এমনকি দেশভাগের পরেও বহুদিন জলপাইগুড়ির ওপর দিয়ে হলদিবাড়ি-চিলাহাটি হয়ে সান্তাহার এবং দর্শনা পেরিয়ে শিয়ালদহ পর্যন্ত দার্জিলিং মেল চলাচল করত ।  দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাশের নশ্বর দেহ দার্জিলিং থেকে নামিয়ে এই পথ দিয়েই ট্রেনে চাপিয়ে কলকাতায় নিয়ে যাওয়া হয়েছিল । রবীন্দ্রনাথ থেকে নেতাজি এই রেলপথ দিয়েই কলকাতা ও উত্তরবঙ্গের মধ্যে যাতায়াত করেছেন । ১৭ই ডিসেম্বর থেকে চিলাহাটি-হলদিবাড়ি হয়ে নিউজলপাইগুড়ি পর্যন্ত নিয়মিত পণ্যবাহী ট্রেন চলাচল করবে দুই দেশের মধ্যে । 

জিরো পয়েন্ট পেরিয়ে ভারতে ঢোকার প্রাক মুহুর্তে  বাংলাদেশের ট্রেন

আগামী ২৬ মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী বর্ষ উদযাপনের দিন এই রেলপথ দিয়ে ঢাকা-শিলিগুড়ি  যাত্রীবাহী ট্রেন চালানোর পরিকল্পনা রয়েছে দু’ দেশের সরকারের । জলপাইগুড়ি সহ উত্তরবঙ্গের বিস্তীর্ণ এলাকার মানুষের অন্য আরেকটি প্রত্যাশাও আছে । তা হল  হলদিবাড়ি-চিলাহাটি-সান্তাহার রেলপথ দিয়ে শিয়ালদহ পর্যন্ত  দার্জিলিং মেলের পুনরায়  যাতায়াতের সূচনা । এই পথে জলপাইগুড়ির সঙ্গে কলকাতার দূরত্ব অনেকটাই কমবে । 

হলদিবাড়ি স্টেশনে সুসজজিত বাংলাদেশী লোকোমেটিভ

হলদিবাড়ি- চিলাহাটি রেলপথে ফের ট্রেন যোগাযোগ চালু হ‌ওয়ায় খুশি জলপাইগুড়ি , হলদিবাড়ির সাধারণ মানুষ । এদিন এই ঐতিহাসিক ঘটনার সাক্ষী হতে হলদিবাড়ি স্টেশন চত্বরে অসংখ্য মানুষের জমায়েত হয়েছিল । জিরো লাইন অতিক্রম করে বাংলাদেশের দিক থেকে ৩২টি ওয়াগনের একটি পণ্যবাহী ট্রেন ভারতে প্রবেশ করতেই দুই‌ পাড়ের মানুষ উল্লসিত হয়ে ওঠেন । খালি  ওয়াগন গুলি হলদিবাড়ি স্টেশনে রেখে বাংলাদেশের লোকো ফিরে যায় । এই উপলক্ষে‌ নতুন ভাবে সেজে ওঠা  হলদিবাড়ি স্টেশনে উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলওয়ের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 

ইতিহাসের সাক্ষী হতে হলদিবাড়ি স্টেশনে মানুষের ভিড়

ছবি/ ভিডিও – নাগরিক 


Leave a Reply

Your email address will not be published.